মঠবাড়িয়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে বিধবা নারীকে কুপিয়ে জখম - অনলাইন মঠবা‌ড়িয়া সেবা

শিরোনাম

"সত্য প্রকা‌শে আমরা"

Post Top Ad

Wikipedia

সার্চ ফলাফল

২১ জুন, ২০২০

মঠবাড়িয়ায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে বিধবা নারীকে কুপিয়ে জখম

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি: জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ফুলমতি (৫৫) নামে এক বিধবা নারীকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে। এসময় ওই নারীর গোয়াল ঘর ভেঙে ফেলাসহ বসত ঘরে ভাংচুর ও লুটপাট করার ঘটনা ঘটেছে। গুরুতর আহত ওই নারী গত ৩ দিন ধরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ফুলমতি উপজেলার বুখাইতলা বান্ধবপাড়া গ্রামের মৃত. রত্তন কাজীর স্ত্রী।

আহত ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুখাইতলা বান্ধবপাড়া গ্রামের রত্তন কাজী গং পৈত্রিক সম্পত্তিতে সীমানা নির্ধারণ করে গত ৬০ বছর ধরে ৭৮ শতাংশ জমির ওপর বসবাস করে আসছে। প্রতিবেশী নূর হোসেনের ছেলে আফজাল ভাড়াটিয়া লোকজন নিয়ে সম্প্রতি ওই সীমানা লঙ্ঘন করে নালা কেঁটে অবৈধভাবে জমি দখল করতে আসে। এঘটনায় মৃত. রত্তন কাজীর ভাই আলম কাজি বাদি হয়ে আফজাল সহ ৪ জনের বিরুদ্ধে মঠবাড়িয়া থানায় লিখিত অভিযোগ করেন। পুলিশ ঘটনাস্থালে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে স্থানীয়ভাবে শালিস বৈঠকে বসার পরামর্শ দেন। ওই শালিস চুড়ান্ত হবার আগেই গত শুক্রবার (১৯ জুন) আফজাল, খলিল হাওলাদার, আনোয়ার হাওলাদার, রাজু, মন্টু, সালাউদ্দিনসহ অজ্ঞাত ৫/৬ ব্যক্তি পুণঃরায় ওই সীমানা লঙ্ঘন করে গোয়াল ঘর ভেঙে নালা কেঁটে অবৈধভাবে জমি দখল করতে আসে। এসময় ফুলমতি বাঁধা দিতে গেলে তাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে বসত ঘরে লুটপাট চালায়।

এব্যপারে আনোয়ার হাওলাদার বলেন, ওই বাড়ির পাশের জমি তারা ক্রয় করেছেন। ওই সীমানায় তারা জমি পাবেন। হামলা ও লুটপাটের ঘটনায় কোন মন্তব্য করেনি।

শালিস প্রধান মুক্তিযোদ্ধা নুর হোসেন বলেন, শালিস চুড়ান্ত হবার আগে জমি দখলে নেয়ার চেষ্টা ও হামলা করা ঠিক হয়নি।
মঠবাড়িয়া ওসি মাসুদুজ্জামান বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন