আজ পবিত্র লাইলাতুল বরাত - অনলাইন মঠবা‌ড়িয়া সেবা

শিরোনাম

"সত্য প্রকা‌শে আমরা"

Post Top Ad

Wikipedia

সার্চ ফলাফল

৯ এপ্রিল, ২০২০

আজ পবিত্র লাইলাতুল বরাত

অনলাইন ডেস্কঃ আজ আরবী বছরের ১৪ শাবান। বিশ্বব্যাপী মুসলিম সম্প্রদায়ের নিকট মহিমান্বিত দিন। আরবিতে একে বলে পবিত্র লাইলাতুল বরাত বা শবে বরাত। বাংলায় যার অর্থ সৌভাগ্যের রজনী। মহান আল্লাহ তাআলা এ রাতে বান্দাদের জন্য তাঁর অশেষ রহমতের দরজা খুলে দেন।
মহিমান্বিত এ রাতে ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা বিগত জীবনের সব ভুল-ভ্রান্তি, পাপ-তাপের জন্য গভীর অনুশোচনা করে মহান আল্লাহ তাআলার দরবারে কায়মনো বাক্যে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। রোজা রাখা ও নফল নামাজ, জিকির-আজকার, পবিত্র কোরআন তিলাওয়াতের মধ্য দিয়ে বিনম্র প্রার্থনা করেন ভবিষ্যৎ জীবনে পাপ-পঙ্কিলতা পরিহার করে পরিশুদ্ধ জীবনযাপনের জন্য।
তাছাড়া বর্ষপঞ্জিতে শাবান মাস একটি গুরুত্বপূর্ণ মাস। রাসূল (সা:) এ মাসে বেশি-বেশি নফল রোজা রাখতেন। রমযানের প্রস্তুতির মাস হিসেবে তিনি এ মাসকে পালন করতেন। শবে বরাতের বরকত, ফযীলত ও মর্যাদা নিয়ে বেশকিছু হাদীসের বর্ণনা প্রচলিত আছে। একটি সহীহ হাদীসে বলা হয়েছে, “আল্লাহ তায়ালা মধ্য শাবানের রাতে তাঁর সৃষ্টির প্রতি দৃষ্টিপাত করেন এবং মুশরিক ও বিদ্বেষ পোষণকারী ব্যতীত সকলকে ক্ষমা করে দেন। আটজন সাহাবীর সূত্রে বিভিন্ন সনদে এই হাদীসটি বর্ণিত হয়েছে।
এ হাদীস থেকে প্রমাণিত হয় যে, শবে বরাত ফযীলতময় এবং এ রাতে আল্লাহ তাঁর বান্দাদেরকে ক্ষমা করে থাকেন। তবে ক্ষমা পাওয়ার শর্ত হলো শিরক ও বিদ্বেষ থেকে মুক্ত থাকা। এ দু’টি বিষয় থেকে যারা মুক্ত থাকবেন তারা কোন অতিরিক্ত আমল ছাড়াই এ রাতের বরকত ও ক্ষমা লাভ করবেন। কিন্তু শিরক ও বিদ্বেষ থেকে মুক্ত হতে না পারলে অন্য আমল দিয়ে ঐ রাতের বরকত ও ক্ষমা লাভ করা যাবে না। দু:খের বিষয় হলো, শবেবরাতে আমরা অনেক নফল আমল করলেও ঐ দু’টি শর্ত পূরণের চেষ্টা খুব কম মানুষই করে থাকি।
আমরা অবশ্যই পবিত্র শবেবরাতের বা নিসফে-শাবানের ফযীলত ও ক্ষমা প্রার্থনা করবো। তবে সাথে সাথে আমাদের চেষ্টা করতে হবে শিরক ও বিদ্বেষ থেকে মুক্ত থাকার। কারণ শবেবরাতের শিক্ষা এটাই। আর শবেবরাত উপলক্ষে যারা আলোকসজ্জা, আতসবাজি ও পটকাবাজি চর্চা করেন তারা খুবই ভুল কাজ করেন। কারণ এসব শবে বরাতের আদর্শ ও শিক্ষার পরিপন্থী কাজ। তাই এইসব কাজ থেকে দূরে থাকাই সমীচীন। আল্লাহ আমাদের সকলকে পবিএ এই রজনীর ফজিলত ও বরকত দান করুন।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন