ভাণ্ডারিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন আজ- উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের সাজে ব্যাতিক্রমী আয়োজন - অনলাইন মঠবা‌ড়িয়া সেবা

শিরোনাম

"সত্য প্রকা‌শে আমরা"

Post Top Ad

Wikipedia

সার্চ ফলাফল

১ মার্চ, ২০২০

ভাণ্ডারিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন আজ- উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের সাজে ব্যাতিক্রমী আয়োজন

পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে  আজ ১ মার্চ রোববার। টানা ছয় বছর পর ব্যাপক আয়োজনে অনুষ্ঠেয় এ সম্মেলনকে ঘিরে ভাণ্ডারিয়া পৌর শহর সেজেজে নয়ণাভিরাম সাজে। এ সাজে সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরা হয়েছে বিশেষ আঙ্গিকে। সেই সাথে স্থানীয় নেতাকর্মী ও জনসাধারণের মাঝে ব্যাপক উৎসবের উদ্দিপনায় মুখরিত এখন ভাণ্ডারিয়া জনপদ।
দলীয় সূত্রে জানাগেছে, সম্মেলনকে ঘিরে ভাণ্ডারিয়ায় উপজেলা আওয়ামীলীগের ব্যপক প্রস্তুতি অতীতের সকল সম্মেলনের চেয়ে উৎসব মুখর। শহরের প্রাণকেন্দ্রের ভাণ্ডারিয়া বিহারী লাল মিত্র মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে প্রায় ১৬০ ফুট লম্বা নৌকার আদলে তৈরী করা হয়েছে সভা মঞ্চ, ৩০০ ফুট লম্বা পদ্মা সেতুর আদলে ও সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডকে তুলে ধরে সাজানো হয়েছে সম্মেলন স্থল। পুরো শহরকে এক বর্ণিল সাজে সাজিয়ে ব্যাপক আলোচনায় এসেছেন সম্মেলন আয়োজকরা। ধারনা করা হচ্ছে ইতিপূর্বে সম্মেলনকে ঘিরে দক্ষিণ জনপদের এ জেলায় এতো বড় প্রস্তুতি আগে কখনও আর হয়নি।
বর্তমান উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান মিরাজুল ইসলামের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডকে তুলে ধরে সাজানো হয়েছে সম্মেলনস্থল।
পিরোজপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ.কে.এম.এ আউয়াল আজ রোববার সকাল দশটায় আনুষ্ঠানিকভাবে এ সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন ।
আয়োজকরা জানান, প্রায় তি শতাধিক শ্রমিক মাসব্যাপী মঞ্চ ও সম্মেলনের সাজসজ্জার কাজে নিয়োজিত ছিলেন। সম্মেলনকে ঘিরে নেতা-কর্মীদের মধ্যে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ । পোস্টারিং, ফেস্টুন ও তোরণ এছেয়েগেছে উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক গুলো । এদিকে ভান্ডারিয়া উপজেলাসহ এর আস পাশের উৎসুক জনতা দৃষ্টি নন্দন ব্যতিক্রমী এ সভা মঞ্চদেখার জন্য ভীড় করছেন।
জানাগেছে, ২০১৪ সালে অক্টোবরে ভাণ্ডারিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এরপর দলে নানা টানা পোড়েনে নেতা কর্মীরা দ্বিধাবিভক্তিতে আর সম¥েলন অনুষ্ঠিত হতে পারেনি। এবার দলীয় দ্বিধা বিভিক্তির অবসানের পর এ সম্মেলনকে ঘিরে নবীন-প্রবীণ নেতা – কর্মীদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ।
সম্মেলন উপলক্ষে নেতাকর্মীদের আনাগোনায় প্রাণ ফিরে পেয়েছে দলীয় কার্যালয়। দলীয় যে কোনো কর্মসূচীতে স্বতঃস্ফূর্তভাবে অংশ নিচ্ছেন সকল নেতাকর্মী। সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ গুরুত্ব পদে আসার জন্য নেতাকর্মীরা দৌড় ঝাপ করছেন যে যার মত । এছাড়া গোপনে বৈঠক করে নেতারা সম্ভাব্য পদে অধিষ্ঠিত হওয়ার জন্য দল ভারী করছেন। পদ প্রত্যাশী নেতারা জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে ধরনা দিচ্ছেন। সেই সঙ্গে তৃণমূলের কাউন্সিলরদের সঙ্গে যোগাযোগও রেখেছেন নিয়মিত। সম্মেলনকে ঘিরে দলীয় কার্যালয়সহ পুরো শহেরর চিত্রই যেন পাল্টে গেছে। কে হবেন নতুন সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক এমন আলোচনা চায়ের টেবিল থেকে শুরু করে হাটবাজারের সর্বত্রই চলছে।
উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এহসাম হাওলাদার বলেন আমাদের বর্তমান কারিসমাটিক সাধারণ সম্পাদক মো. মিরাজুল ইসলামের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ডকে তুলে ধরে সাজানো হয়েছে সম্মেলন স্থল। সম্মেলনকে ঘিরে সমগ্র উপজেলা নেতা কর্মী তো বটে সমগ্র উপজেলাবাসীর মাঝেও উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে।
ভাণ্ডারিয়া পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি শহিদুল আলম স্বপন সিকদার বলেন, ভাণ্ডারিয়া আওয়ামীলীগের ইতিহাসে এবারের সম্মেলন সবচেয়ে সুশৃঙ্খল ও উৎসব মুখর।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহাবুদ্নি শাহ (বাবুল) বলেন,এবারের সম্মেলনকে ঘিরে সভা স্থলে ২০/২৫ হাজার নেতাকর্মী সমবেত হবেন বলে আশা করছি। বিগত দিনে এত ব্যাপক আয়োজনে ভাণ্ডারিয়া তো বটেই বরশিাল বিভাগেও এমন আয়োজন আগে কখনও হয়নি।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন