পিরোজপুরে পাগলীর সন্তান প্রসব, দেখভালের দায়িত্ব নিলেন ইউএনও - অনলাইন মঠবা‌ড়িয়া সেবা

শিরোনাম

"সত্য প্রকা‌শে আমরা"

Post Top Ad

Wikipedia

সার্চ ফলাফল

২১ ফেব, ২০২০

পিরোজপুরে পাগলীর সন্তান প্রসব, দেখভালের দায়িত্ব নিলেন ইউএনও

কাউখালী প্রতিনিধি: পিরোজপুরের কাউখালীতে সাকিলা আক্তার (৩৫) নামে পরিচয়হীন মানসিক ভারসাম্যহীন নারী হাসপাতালে সন্তান প্রসব করেছেন। বুধবার দিনগত রাত দশটার দিকে অপ্রকৃতিস্থ ওই নারী হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থান একটি ফুটফুটে ছেলে সন্তান প্রসব করে। বৃহস্পতিবার সকালে ইউএনও নবজাতক শিশু ও প্রসূতি মায়ের জন্য উপকরণ সহায়তা দিতে গিয়ে হাসপাতালে উপস্থিত হন। এসময় তিনি নবজাতক শিশুটির নাম দেন মো. আব্দুল্লাহ। গত একমাস আগে কাউখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খালেদা আক্তার রেখা মানসিক ভারসাম্যহীন ওই নারীকে অসুস্থ অবস্থায় পথ থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন।
জানা গেছে, গত ১৫ জানুয়ারি মানসিক ভারসাম্যহীন সন্তান সম্ভবা সাকিলা কাউখালী সদরের উত্তর বাজার সেতুর কাছে অসুস্থ অবস্থায় পড়ে ছিলেন। স্থানীয় তার অবস্থা গুরুতর দেখে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। খবর পেয়ে ইউএনও মোছা. খালেদা খাতুন রেখা ঘটনাস্থলে এসে পরিচয়হীন ওই নারীকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। গত এক মাস ধরে ওই নারী চিকিৎসাধিন থাকা অবস্থায় ইউএনও তার দেখভালের দায়িত্ব পালন করেন । এমন অবস্থায় গতকাল বুধবার দিনগত রাত দশটার দিকে সাকিলার কোলজুড়ে একটি ফুটফুটে ছেলে শিশুর জন্ম হয়। প্রসূতি নারী ও নবজাতক সুস্থ রয়েছেন।
এবিষয়ে কাউখালী প্রেস ক্লাবের সভাপতি তারিকুল ইসলাম পান্নু জানান, গত একমাস আগে ওই নারী মানসিক ভারসাম্যহীন অবস্থায় শহরে ঘোরাফেরা করছিলো। সে তার নাম সাকিলা বাড়ি মাদারীপুরের শিবচর এর বেশী কিছু বলকে পারছেনা। ইউএনও মানবিক উদ্যোগে অসুস্থ ওই নারী একমাস চিকিৎসা শেষে একটি ছেলে সন্তান প্রসব করেছে। মানবিক বিষয়টি এলাকজাজুড়ে ব্যাপক আলোচিত হচ্ছে।
কাউখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. মাসুম বিল্লাহ বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, সাকিলার সাধারণ ভাবেই সন্তান প্রসব করেছেন (নরমাল ডেলিভারী) । সে প্রকৃতিস্থ হিসেবে নয় ইউএনওর নির্দেশে আমরা তার যথাযথ চিকিৎসাসেবা প্রদান করছি। বর্তমানে প্রসূতি মা ও নবজাতক সম্পূর্ণ সুস্থ রয়েছেন।
এ বিষয়ে কাউখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা খালেদা খাতুন রেখা বলেন, সাকিলা মানসিক ভারসাম্যহীন। তার চিকিৎসা পাওয়ার অধিকার আছে। তাকে পথ থেকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার প্রকৃত ঠিকানা অনুসন্ধানের প্রক্রিয়া চলছে। না পাওয়া গেলে তার সুস্থতা পরবর্তী সমাজসেবা অধিদপ্তরের আশ্রয়ণের সহায়তা চাওয়া হবে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন