মঠবাড়িয়ায় মুক্তিযোদ্ধার জমি দখলের সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানের চাঁদা দাবির মামলা - অনলাইন মঠবা‌ড়িয়া সেবা

শিরোনাম

"সত্য প্রকা‌শে আমরা"

Post Top Ad

Wikipedia

সার্চ ফলাফল

৩১ মে, ২০১৯

মঠবাড়িয়ায় মুক্তিযোদ্ধার জমি দখলের সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিকের বিরুদ্ধে ইউপি চেয়ারম্যানের চাঁদা দাবির মামলা

মঠবাড়িয়া প্রতিনিধি :পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান কর্তৃক মুক্তিযোদ্ধার জমি জবর-দখলের সংবাদ পত্রিকায় প্রকাশ করায় মঠবাড়িয়া সাংবাদিক সমিতির সভাপতি ইসমাইল হাওলাদারের বিরুদ্ধে চাঁদাদাবি ও মানহানির মামলা দায়ের হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ৪নম্বর দাউদখালী ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক রাহাত বাদি হয়ে মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। বিজ্ঞ বিচারক মামলাটি মঠবাড়িয়া থানার ওসিকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।
স্থানীয় সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার দধিভাঙ্গা বাজারের মুক্তিযোদ্ধা আবদুল লতিফ মোল্লার ডিসিআরকৃত জমি গত ২২ মে রাতে ইউপি চেয়ারম্যান ফজলুল হক রাহাত খান তার দলবল দিয়ে দখল করে নেয়। এই মর্মে ওই মুক্তিযোদ্ধা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। ওই অভিযোগের সূত্র ধরে গত ২৫ মে জাতীয় দৈনিক বর্তমান, আমার সংবাদ, খবরপত্র, বিভিন্ন অনলাইন ও বরিশাল থেকে প্রকাশিত কয়েকটি আঞ্চলিক পত্রিকায় ওই শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। এতে ওই ইউপি চেয়ারম্যান ক্ষুদ্ধ হয়ে স্থানীয় সাংবাদিক দৈনিক বর্তমান পত্রিকার প্রতিনিধি ও মঠবাড়িয়া সাংবাদিক সমিতির সভাপতি ইসমাইল হোসেন হাওলাদারের বিরুদ্ধে ৫০ হাজার টাকার চাঁদাদাবি ও ১০ লাখ টাকার মানহানি মামলা দায়ের করেন।
মামলায় অভিযোগ আনা হয়েছে, মুক্তিযোদ্ধার জমি জবরদখখলের সংবাদটি অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যানের দধিভাঙ্গা বাড়িতে গিয়ে ওই সংবাটি প্রকাশ না করার শর্তে ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন সংশ্লিষ্ট সাংবাদিক । এতে অপরগতা প্রকাশ করায় সাংবাদিক ইসমাইল মিথ্যা  তথ্য সরবরাহ করে তার বিরুদ্ধে সংবাদ প্রকাশ করেন। এতে তার ১০ লাখ টাকার মানহানি ঘটেছে বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়।
এবিষয়ে সাংবাদিক ইসমাইল হোসেন জানান, মুক্তিযোদ্ধা আ. লতিফ মোল্লার দধিভাঙ্গা বাজারস্থ জমি জবর-দখলের সংবাদ প্রকাশ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে চেয়ারম্যান ফজলুল হক রাহাত আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে এ মামলা করেন। তিনি আরো বলেন, আমি কখনই তার কাছে চাঁদা দাবি করি নাই। এ অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন